• Home
  • Article Details

চাকরির সাক্ষাৎকার পর্বে যে প্রশ্নগুলো করা থেকে বিরত থাকা উচিৎ

Apr 16, 2017

Share on

Article image

প্রতিষ্ঠান কি নিয়ে কাজ করে?

নিয়োগকর্তা প্রত্যাশা করেন প্রার্থী তার/তাদের প্রতিষ্ঠান কি ধরণের কাজ করে সে সব জেনেই চাকরির জন্য আবেদন করেছেন তাই তাকে সাক্ষাৎকার পর্বে ডাকা হয়েছে। অতএব প্রতিষ্ঠান কি কাজ করে সে বিষয়ে সাক্ষাৎকার পর্বে প্রশ্ন করলে নিয়োগকর্তার মাঝে প্রার্থী সম্পর্কে নেতিবাচক ধরণার সৃষ্টি হয়। তাই প্রতিষ্ঠান কি ধরণের কাজ করে সেসব জেনে চাকরির জন্য আবেদন করা উচিৎ।

 প্রতিষ্ঠানের প্রধান কর্যালয় কোথায়?

সাক্ষাৎকারে একটি সাধারণ রীতি মেনে চলা উচিত তাহলো, আপনি যে প্রশ্নে উত্তর গুগল করে জানতে পারবেন তা জিজ্ঞেস করার কোন মানেই হয়না। সাক্ষাৎকার পর্বে উপস্থিত হওয়ার পূর্বে প্রতিষ্ঠান বা প্রতিষ্ঠানের তথ্য সংগ্রহ করে জেনে শুনে প্রস্তুত হয়ে যাওয়াই উত্তম। এতে করে সংক্ষিপ্ত সময়ে আপনি  প্রশ্নোত্তর পর্বে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উপস্থাপন করতে পারবেন। তাছাড়া এই সামান্য প্রস্তুতির মাধ্যমে সাক্ষাৎকার পর্বে আপনার প্রতি নিয়োগকর্তার ইতিবাচক অভিব্যক্তি তৈরী হবে যা সাক্ষাৎকার পর্বকে অর্থবহ করে তুলবে।

প্রতিষ্ঠানে ছুটির বিধানসমূহ কেমন?

এমন প্রশ্ন চাকরিদাতাকে ভাবতে সহায়তা করে যে আপনি এরই মধ্যে অবসর খুঁজছেন। চাকরিদাতা এমন উদ্যমী কর্মীই খোঁজেন যে তার প্রতিষ্ঠানকে সাফল্যের চূড়ায় নিয়ে যাবে কিন্ত এমন কাউকে নয় যে প্রথম দিনই সমুদ্র ভ্রমনের কথা চিন্তা করছে।

অফিসে নারী/পুরুষ কর্মী রয়েছে কিনা?

এ ধরনের প্রশ্ন নিজের অপরিপক্বতা প্রকাশ করে যার ফলে কর্তৃপক্ষ নিশ্চিতভাবেই আপনার আচার আচরণ নিয়ে উদ্বিগ্ন হবেন।

 

নিজের যোগ্যতা ও দক্ষতা প্রমান করার জন্য চাকরির সাক্ষাৎকার পর্বে অতিরঞ্জিত কিছু বলা যেমন কাম্য নয় ঠিক তেমনি উল্লিখিত প্রশ্নগুলো করে নিয়োগকর্তাকে বিব্রত করাও উচিৎ নয়।

 

 

Writer:
Profile Photo

ক্যারিয়ার বিষয়ক ওয়েবসাইট অবলম্বনে-

এস. এম. নুরুল মোসাব্বির মনি
কন্টেন্ট স্পেশালিষ্ট, চাকরি ডটকম